রবিবার, ৭ই মার্চ, ২০২১ ইং, ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
রবিবার, ৭ই মার্চ, ২০২১ ইং, ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
রবিবার, ৭ই মার্চ, ২০২১ ইং

ইতালিতে বাংলাদেশিদের ‘ব্ল্যাঙ্কেট টেস্টিং’ এর নির্দেশনা

ইতালিতে বাংলাদেশিদের ‘ব্ল্যাঙ্কেট টেস্টিং’ এর নির্দেশনা

ইতালির রোমের পার্শ্ববর্তীয় অঞ্চল সেন্ট্রাল ইতালি হিসেবে পরিচিত লাজিওতে অবস্থানকারী বাংলাদেশি কমিউনিটির সকলকে করোনাভাইরাসের পরীক্ষার করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে একটি কমিউনিটির সকলকে এই টেস্ট করানোকে বলা হয় ‘ব্ল্যাঙ্কেট টেস্টিং’। ওই অঞ্চলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় এই নির্দেশনা দেয়া হয়।

গত ফেব্রুয়ারির শেষে ইতালিতে করোনাভাইরাস মহামারি ছড়িয়ে পড়লে এই লাজিওতে ৮ হাজার মানুষ আক্রান্ত হন। যদিও এটা লোম্বার্ডি এবং উত্তরের অন্যান্য অঞ্চল থেকে কম।

সম্প্রতি এই এলাকায় ভাইরাসে আক্রান্তের প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে আবারো, যেটা গুচ্ছ বা ক্লাস্টার প্রক্রিয়ায় ছড়াচ্ছে। যেখানে ১০ জন বাংলাদেশিও রয়েছে। বিশেষ করে গত শুক্রবার একজন ব্যক্তি দেশ থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ফিরে যাওয়ার পর থেকেই এই নির্দেশনা জোরালো হয়েছে।

লাজিও স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান ডি’আমাতো বলেন, সোমবার থেকে এখানে একটি পরীক্ষা কেন্দ্র চালু হবে। যেটা শুধু বাংলাদেশিদের টেস্ট করানোর জন্য। সবাইকে স্বেচ্ছায় পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে।

ইতালির পরিসংখ্যান ইনস্টিটিউটের তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে ১ লাখ ৪০ হাজার বাংলাদেশি রয়েছে। যার মধ্যে ৩৭ হাজার রয়েছেন লাজিওতে। এছাড়াও রোমে রয়েছেন প্রায় ৩২ হাজার বাংলাদেশি।

ডি’আমাতো তার বিবৃতিতে বলেন, যারা বাংলাদেশ থেকে আসছেন, তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। এছাড়াও এ বিষয়ে এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে এবং চিকিৎসকদের বলা হয়েছে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে।

শনিবার (৪ জুলাই) রয়টার্সে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ইতালির চেয়ে তিন গুন জনসংখ্যা বেশি। তবে পরীক্ষা কম হওয়ার কারণে সেখানে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা কম বলে ধারণা করছে ইতালি।

পৃথিবীতে করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া দেশগুলোর মধ্যে একটি ইতালি। যেখানে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৫ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে এবং গত দুই সপ্তাহ ধরে গড়ে প্রতিদিন এখনো ৫০ জন করে মারা যাচ্ছে। যদিও এটা দুই মাস পূর্বের সঙ্গে তুলনা করলে কম।

শেয়ার করুন:Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email

মন্তব্য করুন

মন্তব্য