রবিবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং, ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
রবিবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং, ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
রবিবার, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

স্থগিতের পর আবারও কলকাতা রুটে ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দিল বিমান

স্থগিতের পর আবারও কলকাতা রুটে ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দিল বিমান

অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণার পর আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-কলকাতা রুটে আবারও ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস।

প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটের নোটিশ বোর্ডে এ তথ্য জানায় বিমান। তবে সপ্তাহে কয়টি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে এ বিষয়ে কিছু জানায়নি তারা।

এর আগে ৯ নভেম্বর যাত্রী সংকটের কারণে কলকাতা ফ্লাইট অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণা করেছিল বিমান।

সেসময় যাত্রীদের উদ্দেশ্যে বিমান জানিয়েছিল, ১২ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) থেকে বিমানের কলকাতা রুটের ফ্লাইটগুলো স্থগিত করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তীতে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে গত ২৮ অক্টোবর থেকে এয়ারবাবল চুক্তির আওতায় বাংলাদেশ বিমান ভারতের তিনটি রুটে ফ্লাইট চালু করে।

তারা ঢাকা থেকে কলকাতা, দিল্লী, চেন্নাই রুটে সপ্তাহে তিনটি করে ফ্লাইট এবং ইউএস-বাংলা ঢাকা থেকে কলকাতা এবং ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে চেন্নাই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

তবে অনুমতি পেলেও এখনো ভারত রুটে ফ্লাইট শুরু করেনি নভোএয়ার। এ বিষয়ে নভোএয়ারের মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস বিভাগের সিনিয়র ম্যানেজার এ কে এম মাহফুজুল আলমবলেন, ‘নভোএয়ারের ফ্লাইট পরিচালনার জন্য সবধরনের অনুমতি নিয়ে রেখেছি। তবে ট্যুরিস্ট ভিসা চালু না হওয়ায় যাত্রীর সংখ্যা এখন অনেক কম। তাই আমরা ফ্লাইট পরিচালনা করছি না। ভারত ট্যুরিস্ট ভিসা চালু করলে আমরা আবারও এই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করবো।’

এয়ারবাবল চুক্তির অধীনে ভারতের এয়ার ইন্ডিয়া, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট, ভিস্তারা এবং গোএয়ার ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে।

বর্তমানে বাংলাদেশি যাত্রীরা বিজনেস/ব্যবসায়িক ভিসা, মেডিকেল/মেডিকেল অ্যাটেনডেন্ট ভিসা, স্টুডেন্ট/শিক্ষার্থী ভিসা, রিসার্চ/গবেষণা, কনফারেন্স/ সম্মেলন ভিসা, এমপ্লয়মেন্ট/কর্মসংস্থান ভিসা, ট্রেইনিং/প্রশিক্ষণ ভিসায় দেশটিতে যেতে পারলেও কাউকে পর্যটক বা ট্যুরিস্ট ভিসা দিচ্ছে না ভারত।

সব যাত্রীর জন্য যাত্রার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট নেয়া বাধ্যতামূলক করেছে ভারত।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ২১ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত যুক্তরাজ্য, চীন, হংকং, থাইল্যান্ড ছাড়া সব দেশের সঙ্গে এবং অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রীবাহী ফ্লাইট চলাচল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। এরপর আরেকটি আদেশে চীন বাদে সব দেশের সঙ্গে ৭ এপ্রিল পর্যন্ত বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

এই নিষেধাজ্ঞা সরকারি সাধারণ ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে পর্যায়ক্রমে ১৪ এপ্রিল, ৩০ এপ্রিল, ৭ মে, ১৬ মে, ৩০ মে এবং ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ১৬ জুন থেকে প্রথমবারের মতো ঢাকা থেকে লন্ডন এবং কাতার রুটে ফ্লাইট চলাচল করার অনুমতি দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় অন্যান্য দেশের ফ্লাইটগুলো চালু করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন:Share on Facebook
Facebook
Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email

মন্তব্য করুন

মন্তব্য